বুধবার, জুন ২৬ ২০২৪ | ১২ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - বর্ষাকাল | ১৯শে জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

৪০ বছরের পৃথিবীর জলবায়ু পরিবর্তন দেখুন গুগল আর্থে

সাইবারবার্তা ডেস্ক: জলবায়ু পরিবর্তন। মানুষ এ পরিবর্তন খালি চোখে দেখতে পায় না, দেখতে পেলেও খুব একটা গায়ে লাগায় না। কিন্তু স্যাটেলাইটে ঠিকই ধরা পড়ছে, বছরের পর বছর ধরে কীভাবে পৃথিবী একটু একটু করে বদলে যাচ্ছে। গুগল আর্থে ধরা পড়ছে ভয়াবহ বিপর্যয়ের আগ মুহূর্তে পৃথিবী যে ধীরে ধীরে রূপ বদলাচ্ছে, রুঢ় হচ্ছে, সেই চিত্র।

 

গুগল আর্থের ব্যবহারকারীরা এখন দেখতে পাবেন গেল ৪ দশকে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে কীভাবে পৃথিবীর রূপ বদলেছে। কীভাবে বরফে ঢাকা সাদা শুভ্র অঞ্চল গলে পনি হয়ে বরফ শূন্য হয়ে গেছে। সবুজে ঘেরা বনাঞ্চলগুলো কিভাবে ফাঁকা হয়েছে। জ্বালানি কীভাবে প্রকৃতিকে গিলে খাচ্ছে। উষ্ণায়নের কারণে পৃথিবীর সৌন্দর্যই যে বিলুপ্তির পথে যাচ্ছে, দূষণে নীল পানি কীভাবে রং বদলেছ, সবকিছুই দেখা যাবে গুগল আর্থে।

 

এ জন্য গুগল নিয়ে এসেছে নতুন ফিচার টাইমল্যাপস। এই টাইমল্যাপস আপনাকে নিয়ে যাবে ৩৭ বছর আগের পৃথিবীতে। যেখানে সুস্পষ্টভাবে দেখা যাবে কীভাবে মানুষের কারণে প্রকৃতি দিনে দিনে এত বৈরী হয়েছে। প্ল্যাটফর্মটিতে ফোরডিতে দেখা যাবে বিভিন্ন স্থানের ছবি। দেখা যাবে বছর বছর কীভাবে হিমবাহ গলেছে, বনাঞ্চল ধ্বংস হয়েছে, দাবানলে পুড়েছে একরের পর একর বন। পৃথিবীর সব স্থানে কার্বনের পদচিহ্ন স্পষ্ট।

 

টাইমল্যাপসটিতে একসঙ্গে বিভিন্ন স্যাটেলাইট থেকে নেয়া ২ কোটি ৪০ লাখ ছবি একত্রিত করা হয়েছে। এ ছবিগুলো ১৯৮৪ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত তোলা। গুগল ক্লাউডে এ ছবিগুলো আপলোড করতে ২০ লাখ ঘণ্টা লেগেছে। কাজ করেছে হাজার হাজার মেশিন। গুগল এ প্রকল্প বাস্তবায়নে কাজ করেছে নাসার সঙ্গে। সঙ্গে কাজ করেছে আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠান। এখন পর্যন্ত এটি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ভিডিও।

 

গুগল আর্থে এই টাইমল্যাপস দেখতে ব্যবহারকারীকে সার্চ বারে গিয়ে স্থানের নাম উল্লেখ করতে হবে। গুগল জানায়, এ ছবিগুলো থেকে বেগ আর ছায়া সরিয়ে ফেলা হয়েছে যেন এগুলো স্পষ্ট দক্ষও যায়। সব ছবি আবার একসঙ্গে করে একটি টাইমল্যাপস ভিডিও বানানো হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যাবে সময়ের পরিক্রমায় উপকূলীয় এলাকাগুলোর কি বেহাল দশা হয়েছে আর শহরগুলো কীভাবে স্থান প্রকৃতির স্থান দখল করেছে।সৌজন্যেঃ সময় নিউজ

 

(সাইবারবার্তা.কম/আরআই/জেডআই/ ১৭এপ্রিল,২০২১)

শেয়ার করুন

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
আরও পড়ুন

নতুন প্রকাশ