শুক্রবার, জুলাই ১৯ ২০২৪ | ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - বর্ষাকাল | ১২ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

ঝুঁকির মধ্যেই সারাদেশে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা

সাইবারবার্তা ডেস্ক:দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ভয়াবহ রূপে ছড়িয়ে পড়েছে। করোনার এমন ঝুঁকির মধ্যেই শুক্রবার (২ এপ্রিল) সারাদেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে মেডিকেল (এমবিবিএস) ভর্তি পরীক্ষা। এমন সিদ্ধান্তে স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষার্থী, অভিভাবক সবাইকে ঝুঁকিতে ফেলা হচ্ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। 

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল ১০ থেকে ১১টা পর্যন্ত ঢাকা মহানগরের ১৫টি কেদ্রে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা হবে। ঢাকায় ৪৭ হাজার পরীক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নেবে।

এ ভর্তি পরীক্ষা স্বচ্ছ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে কয়েকটি নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে পুলিশের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে। সেখানে বলা হয়েছে, পরীক্ষার্থীদের মাস্ক পরে পরীক্ষা কেন্দ্রে আসতে হবে। সবক্ষেত্রে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে, সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

পরীক্ষা কেন্দ্রের প্রবেশদ্বারে সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে অথবা স্যানিটাইজ করতে হবে। কেন্দ্রের আশপাশে গাড়ি রাখা যাবে না। অভিভাবকরা কেন্দ্রের কাছে অবস্থান করতে পারবেন না।

ফটোকপিয়ার, কম্পিউটার কম্পোজ ও প্রিন্টিংয়ের দোকান পরীক্ষার আগের দিন রাত ৮টা থেকে পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র ছাড়া অন্য কোনো কাগজ বা মোবাইল ফোন সঙ্গে না রাখার পরামর্শ দিয়ে বলা হয়, প্রত্যেককে তল্লাশি করে তারপর কেন্দ্রে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে শহিদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের ভাইরোলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. জাহিদুর রহমান বলেন, সেকেন্ড ওয়েব শুরু হওয়ার মাত্র কয়েক দিনের মধ্যেই আমাদের ল্যাবের একজন সহকারী অধ্যাপক, একজন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট এবং এমএলএসএস আক্রান্ত হয়েছেন।

যারা এখনো অলৌকিকভাবে আক্রান্ত না হয়ে আছেন, তারাও আশা করি আগামী শুক্রবার মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ডিউটি করার সময় আক্রান্ত হবেন।

তিনি বলেন, দেশে এতই লোকবল সংকট যে কোভিড পিসিআর ল্যাব থেকে লোকজন বের করে নিয়ে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ডিউটি করানো হচ্ছে। আমাদের করোনা ল্যাবে দায়িত্বরত সবাইকে (ডাক্তার, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, এমএলএসএস) মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার হলের দায়িত্ব অর্পণ করা হয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, এ সংক্রমণের মধ্যে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা নেয়াটা কী খুব জরুরি? একবার ভাবুন। হাজার হাজার ছেলেমেয়ে আসবে পরীক্ষা দিতে। আসবে তাদের অভিভাবকরা। অসংখ্য ডাক্তারকেও এ কাজে যুক্ত হতে হবে। এ সময় সবাইকে ঝুঁকিতে ফেলা কী খুব জরুরি? 

সংশ্লিষ্টরা জানান, দেশের ৩৭টি সরকারি ও ৬৭টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস কোর্সের প্রথম বর্ষের (২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষ) ভর্তি পরীক্ষা আজ অনুষ্ঠিত হবে।

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীনে কেন্দ্রীয়ভাবে রাজধানীসহ সারা দেশের ১৯টি কেন্দ্রের বিভিন্ন ভেন্যুতে সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত ১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

করোনা মহামারি পরিস্থিতিতেও এবার রেকর্ডসংখ্যক শিক্ষার্থী এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে যাচ্ছেন। এবার আবেদন করেছেন এক লাখ ২২ হাজার ৮৭৪ জন শিক্ষার্থী। গত বছর ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে আবেদন করেছিলেন প্রায় ৭২ হাজার শিক্ষার্থী।

আগামী চার তারিখ থেকে সারা দেশে এমবিবিএসের বিভিন্ন বর্ষের প্রফেশনাল পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরা শঙ্কা প্রকাশ করে জানিয়েছেন, সব হাসপাতালে করোনা রোগীর ছাড়াছড়ি। এমন পরিস্থিতি প্রুফ দিতে গিয়ে বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থীরা আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের এ কর্মকর্তা বলেন, পরীক্ষা আপাতত বন্ধে আমরা প্রস্তাব দিয়েছিলাম। কিন্তু সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে বিষয়টি আমলে নেয়নি। সৌজ‌ন্যে: যুগান্তর

 (সাইবারবার্তা.কম/এন‌টি/এমএ/২ এ‌প্রিল ২০২১)

 

শেয়ার করুন

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
আরও পড়ুন

নতুন প্রকাশ